পরিবর্তিত হচ্ছে কোভিড১৯ এর আচারণ, যোগ হচ্ছে নতুন উপসর্গ।

নিজস্ব প্রতিবেদক | ০৪ এপ্রিল ২০২০ | ১১:১১ পূর্বাহ্ণ

বিশ্বজুড়ে এখন একটি’ই আতঙ্কের নাম (কোভিড১৯)বা, করোনাভাইরাস ডিটেকটেড ২০১৯। মাত্র তিন মাসের ব্যবধানে ভাইরাসটি বিশ্বের ২০৫টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। এসব দেশে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ১১ লাখ মানুষ। মৃত্যু হয়েছে প্রায় ৬০ হাজার।

সর্বপ্রথম চীনের উহান শহর থেকে উৎপত্তি এই ভাইরাসের সেখানে তাণ্ডব চালানোর পর একক ছত্রছায়ায় আধিপত্ত বিস্তার করে মৃত্যু পুরিতে পরিণত করেছে ইউরোপের দেশ ইতালি ও স্পেনকে। এবং এর’ই মধ্যে দেশ দুটিতে  প্রান কেঢ়ে নিয়েছে সাড়ে ১৪ হাজার ও ১১ হাজার মানুষের।

দিন যতই যাচ্ছে ততই এই রোগের বিভিন্ন উপসর্গ প্রকাশ পাচ্ছে। প্রথম শুধু জ্বর-সর্দি-কাশি এই রোগের লক্ষণ হিসেবে মনে করা হলেও এখন দেখা দিচ্ছে নতুন নতুন উপসর্গ। ডায়রিয়া, ঘ্রাণশক্তি চলে যাওয়া, খাবরের স্বাদ বুঝতে না পারা, চোখ গোলাপী হয়ে যাওয়া এরকম নানা নতুন নতুন উপসর্গ জেগে উঠছে করোনা সংক্রমণে। এমনই জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। শ্বাসকষ্ট না হলেও সর্দি, কাশি, জ্বরের সঙ্গে এই উপসর্গগুলো দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

স্বাদ ও ঘ্রাণশক্তি হারানো করোনাভাইরাসের নতুন উপসর্গ। এই উপসর্গ নিয়ে একাধিক করোনা আক্রান্ত রোগী ভর্তি হতে শুরু করেছেন বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে। এই মুহূর্তে সবচেয়ে বেশি করোনা সংক্রমণ হয়েছে আমেরিকাতেই।

আরো পড়ুন

হজম শক্তি কমে যাওয়া করোনাভাইরাসের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ উপসর্গ। যার কারণে ডায়রিয়া উপসর্গ দেখা দিচ্ছে আক্রান্তদের শরীরে। করোনা সংক্রমণের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ উপসর্গ হল চোখ গোলাপী হয়ে যাওয়া। তবে এই উপসর্গ খুব কম রোগীর শরীরেই দেখা দিয়েছে। এক থেকে তিন শতাংশ করোনা আক্রান্ত রোগীর চোখ গোলাপী হওয়ার প্রবণতা দেখা দিয়েছে, তার সঙ্গে চোখ ফুলে যাওয়ার মতো ঘটনাও ঘটছে।

কিছু কিছু রোগীর ক্ষেত্রে সর্দি, কাশি, জ্বরের সঙ্গে স্নায়ুবিক সমস্যাও দেখা যাচ্ছে। চিকিৎসকরা পর্যবেক্ষণ করে বলছেন, কিছু রোগীদের মধ্যে স্নায়ুবিক সমস্যাও করোনাভাইরাস সংক্রমণের লক্ষণ হতে পারে। কিছু করোনা রোগীর শরীরে খিঁচুনি দেখা দিয়েছে।

কিছু কিছু রোগীর ক্ষেত্রে আবার মস্তিষ্কেরও অস্বাভাবিক ক্ষতি করেছে করোনাভাইরাস। বিভিন্ন দেশ থেকে প্রাপ্ত নতুন প্রতিবেদনের ভিত্তিতে গবেষকরা এই তথ্য জানিয়েছেন।

 

তথ্য সূত্র: দ্য সান, ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউকে,

আন্তর্জাতিক
৪ এপ্রিল ২০২০